টু স্ট্রোক ও ফোর স্ট্রোক ইঞ্জিন কাকে বলে? চেনার উপায়, এদের মধ্যে পার্থক্য

Photo of author

By Latest206

টু স্ট্রোক (Two Stroke) ইঞ্জিন চেনার উপায়

একটি টু -স্ট্রোক ইঞ্জিনকে সহজে এর ডিজাইন এবং আকার আকৃতি দ্বারা সনাক্ত করা যায়। টু -স্ট্রোক ইঞ্জিনে জ্বালানির জন্য তেল এবং পেট্রলের মিশ্রণের প্রয়োজন হয়, দুটি স্ট্রোকে পাওয়ার চক্রটি সম্পূর্ণ করে এবং অপারেশন চলাকালীন একটি স্বতন্ত্র উচ্চ-পিচ শব্দ তৈরি করে।

(Four Stroke) ফোর-স্ট্রোক ইঞ্জিন চেনার উপায়

আপনি একটি ফোর-স্ট্রোক ইঞ্জিনকে এর জটিল ডিজাইন, জ্বালানী এবং লুব্রিক্যান্ট এর জন্য আলাদা কম্পার্টমেন্ট, চারটি স্ট্রোকে পাওয়ার চক্রটি সম্পূর্ণ করে এবং অপারেশন চলাকালীন একটি ধীর, আরও দমিত শব্দ তৈরি করে সনাক্ত করতে পারেন।

টু-স্ট্রোক (2-Stroke) ও ফোর-স্ট্রোক (4 Stroke) ইঞ্জিন এর মধ্যে পার্থক্য:

দুই স্ট্রোক (2 Stroke)চার স্ট্রোক (4Stroke)
১) টু-স্ট্রোক ইঞ্জিনে পিস্টনের দুইটি স্ট্রোকে ক্র্যাংকশ্যাফট একবার ঘূর্ণন সম্পন্ন করে।১) ফোর-স্ট্রোক ইঞ্জিনে পিস্টনের চার-স্ট্রোকে ক্র্যাংকশ্যাফট (Crankshaft) ঘূর্ণন সম্পন্ন করে।
২) টু-স্ট্রোক ইঞ্জিনে কোন ভালভ থাকেনা তবে মাঝেমাঝে একটি নির্গমন ভালভ (Exhaust Valve) ব্যবহার হয়।২) ফোর-স্ট্রোক ইঞ্জিনে প্রতিটি সিলিন্ডারে দুইটি করে Exhaust Valve ভালভ থাকে।
৩) টু-স্ট্রোক ইঞ্জিনে বাতাস ও জ্বালানির মিশ্রন অপচয় হয়।৩) ফোর-স্ট্রোক ইঞ্জিনে বাতাস ও জ্বালানি মিশ্রনের অপচয় তুলনামূলক কম হয়।
৪) টু-স্ট্রোক ইঞ্জিনে যন্ত্রাংশ কম তাই দক্ষতা বেশি।৪) ফোর-স্ট্রোক ইঞ্জিনে যন্ত্রাংশ বেশি তাই এই ইঞ্জিনের যান্ত্রিক দক্ষতা কম।
৫) টু-স্ট্রোক ইঞ্জিনে এয়ার কুলিং (Air Colling ) পদ্ধতি ব্যবহার হয়। ৫) ফোর-স্ট্রোক ইঞ্জিনে ওয়াটার কুলিং (Water Colling) সিস্টেম ব্যবহার হয়।
৬) টু স্ট্রোক ইঞ্জিনে ফুয়েল (Fuel) অপচয় বেশি হয় তাই এর তাপীয় দক্ষতা কম।৬) ফোর-স্ট্রোক ইঞ্জিনে ফুয়েল অপচয় তুলনামূলক কম হয় তাই এর তাপীয় দক্ষতা বেশি।
৭) টু-স্ট্রোক ইঞ্জিনে শব্দ ও ক্ষয়ক্ষতির পরিমান কম হয়।৭) ফোর স্ট্রোক ইঞ্জিনে শব্দ ও ক্ষয়ক্ষতির পরিমান তুলনামূলক বেশি।
৮) টু -স্ট্রোক ইঞ্জিনে বেশির ভাগই এক সিলিন্ডার বিশিষ্ট ইঞ্জিন।৮) ফোর-স্ট্রোক ইঞ্জিনে বেশির ভাগ বহু সিলিন্ডার (Multiple Cylender) বিশিষ্ট ইঞ্জিন।
৯) টু-স্ট্রোক ইঞ্জিনগুলো সাধারণত ওজনে হালকা।৯) ফোর -স্ট্রোক ইঞ্জিনগুলো ওজনে তুলনামূলক ভারী।
১০) টু-স্ট্রোক ইঞ্জিনে এগজস্ট (নির্গমন) গ্যাসের সাথে কার্য উপযোগী গ্যাস ও বেরিয়ে যায়।১০) ফোর-স্ট্রোক ইঞ্জিনে কার্য উপযোগী গ্যাসের অপচয় নাই বললেই চলে।
১১) টু-স্ট্রোক ইঞ্জিনে প্রতিবারের ঘুর্ননে ইগনিশন ঘটে, একারণে অত্যাধিক তাপ সৃষ্টির কারনে দ্রুত উত্তপ্ত হয়ে যায় ৷১১) ফোর-স্ট্রোক ইঞ্জিনে প্রতি দুইবার ঘুর্ননে একবার ইগনিশন ঘটে, তার ফলে কম তাপ সৃষ্টির হয় এবং কম উত্তপ্ত হয়।
১২. দুই-স্ট্রোক বিশিষ্ট ইঞ্জিননে লুব অয়েলের (Lube Oil ) খরচ বেশি।১২) ফোর-স্ট্রোক বিশিষ্ট ইঞ্জিনে লুব অয়েলর (Lube Oil) খরচ তুলনামূলক কম।
১৩) টু-স্ট্রোক ইঞ্জিনে আয়ুস্কাল (Service Period) বেশিদিন হয়না।১৩) ফোর-স্ট্রোক ইঞ্জিনের আয়ুস্কাল two stroke ইঞ্জিনের চেয়ে তুলনামূলক বেশদিনের হয় ।
১৪) টু-স্ট্রোক ইঞ্জিনের একই আকৃতির ইঞ্জিনে অধিক শক্তি উৎপন্ন হয়।১৪) ফোর-স্ট্রোক ইঞ্জিনে তুলনামূলকভাবে কম শক্তি উৎপন্ন হয়।
১৫) টু-স্ট্রোক ইঞ্জিনে কম স্ট্রোকের কারনে ঘর্ষন জনিত শক্তির অপচয় অনেকটাই রোধ করা যায়।১৫) ফোর-স্ট্রোক ইঞ্জিনে স্ট্রোকের সংখ্যা বেশি থাকার কারনে ঘর্ষন জনিত শক্তির অপচয় তুলনামূলক বেশি হয় ।

Leave a Comment